ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ

চলুন এবার জেনে নিই ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ বিষয়ে। নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ভােটকেন্দ্রের তালিকা চূড়ান্তভাবে প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে রিটার্নিং অফিসারকে প্রতিটি ভােটকেন্দ্রর জন্য ভােটগ্রহণ কর্মকর্তা নিয়ােগের কাজ চূড়ান্ত করিতে হইবে।

গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২-এর ৯ অনুচ্ছেদ অনুসারে রিটার্নিং অফিসার এতদ্‌উদ্দেশ্যে প্রস্তুতকৃত প্যানেল হইতে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের গ্রেড অনুযায়ী উপযুক্ত ব্যক্তিগণকে প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং পােলিং অফিসার নিয়ােগ করিবেন।

পাঠ্যসূচী

ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ

২। প্রতিটি ভােটকেন্দ্রের জন্য একজন প্রিজাইডিং অফিসার এবং প্রতিটি ভােটকক্ষের জন্য একজন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং দুইজন পােলিং অফিসার নিয়ােগ করিতে হইবে।

রিটার্নিং অফিসারকে প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, এবং পােলিং অফিসার নিয়ােগের সময় ঐ সকল কর্মকর্তার কর্মক্ষমতা, দক্ষতা এবং নিরপেক্ষতার দিকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখিতে হইবে। (ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ)

কেননা তাহাদের কর্মক্ষমতা, দক্ষতা ও নিরপেক্ষতার উপরই সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান নির্ভরশীল। প্রতিটি ভােটকেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও পােলিং অফিসারগণকে সকল প্রকার প্রভাবের উর্ধ্বে থাকিয়া নিরপেক্ষভাবে ভােটগ্রহণ অনুষ্ঠান পরিচালনা করিতে হইবে।

৩। সরকারী, আধাসরকারী, স্বায়ত্তশাসিত/আধা স্বায়ত্তশাসিত অফিস/প্রতিষ্ঠান অথবা রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক, বীমা, কর্পোরেশনের কর্মকর্তা হইতে প্রিজাইডিং অফিসার ও সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার নিয়ােগ দানের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব আরােপ করিতে হইবে।

অনুরূপভাবে ঐ সকল অফিস/প্রতিষ্ঠান/কর্পোরেশনের কর্মচারী হইতে পােলিং অফিসার নিয়ােগ দানের প্রতিও গুরুত্ব আরােপ করিতে হইবে।

ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ

তাহা ছাড়া সরকারী/সরকারী অনুদানপ্রাপ্ত কলেজ বা সমমানের মাদ্রাসার শিক্ষক হইতে এবং সরকারী/সরকারী অনুদানপ্রাপ্ত উচ্চ বিদ্যালয়/সমমানের মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক সহকারী প্রধান শিক্ষক হইতে প্রিজাইডিং অফিসার নিয়ােগ করিতে হইবে।

সরকারী/সরকারী অনুদানপ্রাপ্ত কলেজের ডেমনস্ট্রেটর/কর্মকর্তা হইতে সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার কোন কোন ক্ষেত্রে প্রিজাইডিং অফিসার নিয়ােগ করা যাইবে।

৪। সরকারী/সরকারী প্রতিষ্ট বিলালয়, মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষকদিগকে এবং সরকারী/রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগণকেও সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং পােলিং অফিসার হিসাবে নিয়ােগ করা চলিবে।

সরকারী সরকারী অনুদানপ্রাপ্ত উচ্চ বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সমমানের মাদ্রাসা ও সরকারী/রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং ঐ সকল প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী হইতে পােলিং অফিসার নিয়ােগ করা যাইবে।

মহিলা ভােটকেন্দ্রে যদি সম্ভব হয়, ভােটগ্রহণের জন্য মহিলা প্রিজাইডিং অফিসার, মহিলা সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং মহিলা পােলিং অফিসার নিয়ােগ করা যাইবে। সকল ক্ষেত্রেই তাহাদের কর্মদক্ষতা এবং নিরপেক্ষতার বিষয়ে নিশ্চিত হইতে হইবে।

৫। ভােটগ্রহণের জন্য কর্মকর্তা নিয়ােগের সময় গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২এর ৯ অনুচ্ছেদের শর্ত বিধানের প্রতি আপনাকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখিতে হইবে।

এই শর্ত বিধানে উল্লেখ রহিয়াছে যে, যদি কোন ব্যক্তি কোন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চাকুরিতে নিয়ােজিত থাকেন অথবা অতীতে কোন সময় নিয়ােজিত ছিলেন তবে তাহাকে প্রিজাইডিং অফিসার অথবা সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার অথবা পােলিং অফিসার নিয়ােগ করা যাইবে না।

ইহা ছাড়া বিতর্কিত বা যে সমস্ত কর্মকর্তাকর্মচারী অথবা শিক্ষক সম্পর্কে মতবিরােধ রহিয়াছে সেই সমস্ত কর্মকর্তা বা শিক্ষকদিগকে ভােটগ্রহণ কর্মকর্তা হিসাবে নিয়ােগ করা যাইবে না। (ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ)

ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগপত্র

৬। রিটার্নিং অফিসারের সুবিধার্থে প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং পােলিং অফিসারদের নিয়ােগপত্রের একটি নমুনা নিম্নে উল্লেখ করা হইলঃ

ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগপত্র
নমুনা নিয়োগ পদ্ধতি

প্রাপ্তি স্বীকার ও অংগীকারনামা
(এই অংশটুকু রিটার্নিং অফিসারকে ফেরত দিতে হবে)

আমি _________________ উপরে বর্ণিত নিয়ােগ সাগ্রহে গ্রহণ করিয়া অংগীকার করিতেছি যে, আমি আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব সর্বপ্রকার দলীয়/গােষ্ঠীয়/ধর্মীয় প্রভাব হতে মুক্ত থাকিয়া সততা ও ন্যায় নিষ্ঠার সহিত পালন করি। আমি অবগত আছি যে, দায়িত্ব সম্পাদনে কোন ব্যত্যয়ের জন্য গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২; নির্বাচন পরিচালনা বিধিমালা, ১৯৭২ এবং নির্বাচন কর্মকর্তা (বিশেষ বিধান) আইন, ১৯৯১ (১৯৯১ সনের ১৩ নং আইন) এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য আইন অনুযায়ী দায়ী থাকিব। (ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ)

প্রিজাইডিং অফিসার/সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার/পােলিং অফিসার

৭। এই নমুনা অনুযায়ী নিয়ােগপত্রের প্রয়ােজনীয় সংখ্যক অনুলিপি স্থানীয়ভাবে ছাপাইয়া লইতে হইবে। ছাপানাের খরচ মিটাইবার জন্য পরবর্তীতে অর্থ বরাদ্দ করা হইবে।

নিয়ােগপত্রের নমুনা ছকের ৪ নং কলাম অনুযায়ী রিটার্নিং অফিসার, এমন একজন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের নাম সন্নিবেশিত করিবেন যিনি প্রিজাইডিং অফিসারের অনুপস্থিতিতে প্রিজাইডিং অফিসার হিসাবে দায়িত্ব পালন করিবেন।

৮। যেহেতু প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং পােলিং অফিসারদের দক্ষতার উপর সুষ্ঠু নির্বাচন বহুলাংশে নির্ভরশীল সেইহেতু উক্ত অফিসারদের প্রশিক্ষণের জন্য নির্বাচন কমিশন সচিবালয় নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট এর মাধ্যমে প্রশিক্ষণ কোর্সের ব্যবস্থা করিবে।

এই ব্যাপারে জেলা নির্বাচন অফিসারগণ রিটার্নিং অফিসারদিগকে এবং উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসারগণ সহকারী রিটার্নিং অফিসারদিগকে সক্রিয়ভাবে সকল প্রকার সহায়তা প্রদান করিবেন।

প্রিজাইডিং অফিসারগণ যাহাতে নির্বাচন সংক্রান্ত আইন ও বিধির সহিত ভালভাবে পরিচিত হইয়া সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালনা করিতে পারেন তাহার জন্য নির্বাচন কমিশন পৃথক একটি পুস্তিকা প্রণয়ন করিয়াছে।

ঐ পুস্তিকার প্রয়ােজনীয় সংখ্যক কপি প্রিজাইডিং অফিসার এবং সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের মধ্যে বিতরণের জন্য রিটার্নিং অফিসারকে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করিতে হইবে।

উক্ত পুস্তিকা প্রিজাইডিং অফিসার সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারদের মধ্যে বিতরণের পর প্রশিক্ষণ কোর্সে যােগদানের জন্য রিটার্নিং অফিসার নির্দেশ দিবেন।

প্রশিক্ষণ কোর্স চলাকালীন সময়ে পুস্তিকায় সন্নিবেশিত নির্দেশাবলী তাহারা সম্যকরূপে উপলব্ধি করিতে পারিয়াছে কিনা, নানাবিধ প্রশ্নের মাধ্যমে তাহা যাচাই করিয়া লইতে হইবে।

যদি ইহা প্রতীয়মান হয় যে, কোন কর্মকর্তা পুস্তিকায় লিপিবদ্ধ কোন নির্দেশ বা উহার অংশবিশেষ বুঝিয়া উঠিতে পারেন নাই তখন প্রশিক্ষণদাতাকে উহা পরিষ্কার করিয়া বুঝাইয়া দিতে হইবে। প্রশিক্ষণের কাজ ভােটহণের অন্ততঃ ৪/৫ দিন পূর্বে অবশ্যই শেষ করা হইবে। (ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ)

ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ

৯। প্রিজাইডিং অফিসার গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২ এবং নির্বাচন পরিচালনা বিধিমালা, ১৯৭২-এর নির্দেশ ও নিয়মাবলী অনুসারে ভােটগ্রহণ অনুষ্ঠান পরিচালনা করিবেন।

প্রিজাইডিং অফিসারগণ ভােটকেন্দ্রের শান্তি-শৃংখলা ও সুষ্ঠু পরিবেশে ভােটগ্রহণের জন্য দায়িত্ববান থাকিবেন। ভােটকেন্দ্রের শৃংখলা ও শান্তি বিঘ্নিত হইবার বা ভােটগ্রহণের জন্য প্রয়ােজনীয় সুষ্ঠু পরিবেশের পরিপন্থী কোন পরিস্থিতির উদ্ভব হইলে প্রিজাইডিং অফিসার তাহা সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসারকে অবহিত করিবেন।

তবে শর্ত থাকে যে, ভােটগ্রহণ চলাকালে প্রিজাইডিং অফিসার যে কোন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারকে তাহার বিবেচনামতে সুনির্দিষ্টভাবে যে কোন কাজের দায়িত্ব অর্পণ করিতে পারেন এবং এইরূপ অর্পিত দায়িত্ব সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার পালন করিতে বাধ্য থাকিবেন। ইহা রিটার্নিং অফিসার সংশ্লিষ্ট সকল প্রিজাইডিং অফিসারগণকে বুঝাইয়া দিবেন।

১০। ভােটগ্রহণ চলাকালে রিটার্নিং অফিসার যে কোন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারকে প্রিজাইডিং অফিসারের অসুস্থতা বা অন্য কারণে ভােটকেন্দ্রে অনুপস্থিত বা দায়িত্ব পালনে অপারগতার কারণে প্রিজাইডিং অফিসার হিসাবে কার্য সম্পাদনের ভার অৰ্পণ করিতে পারিবেন।

প্রিজাইডিং অফিসারের এইরূপ অনুপস্থিতি বা দায়িত্ব পালনের অপারগতার কারণাবলী লিপিবদ্ধ করিয়া প্রতিবেদন দাখিল করিতে হইবে।

১১। রিটার্নিং অফিসার ভােটগ্রহণ চলাকালীন যে কোন সময় কারণ লিপিবদ্ধ করিয়া যে কোন প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার অথবা পােলিং অফিসারকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করিতে পারিবেন।

এইরূপ বরখাস্তকৃত কর্মকর্তা/কর্মচারীগণের পরিবর্তে কার্য পরিচালনার জন্য রিটার্নিং অফিসার তাহার বিবেচনা অনুযায়ী প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করিবেন।

ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ

১২। প্রিজাইডিং অফিসার হিসাবে নিয়োগলাভের পর পরই তাঁহাকে রিটার্নিং অফিসার/সহকারী রিটার্নিং অফিসারের সহিত যােগাযোেগ করিতে হইবে এবং

প্রত্যেক প্রিজাইডিং অফিসারকে তিনি যে ভােটকেন্দ্রের জন্য প্রিজাইডিং অফিসার নিয়ােজিত হইয়াছেন সেই ভােটকেন্দ্রের ভােটার সংখ্যা, ভােটকক্ষের সংখ্যা এবং ভােটার এলাকার নামসমূহ যাহাতে সগ্রহ করেন তাহা রিটার্নিং অফিসারকে সংশ্লিষ্ট প্রিজাইডিং অফিসারগণকে বুঝাইয়া দিতে হইবে।

১৩। ভোটার তালিকা ও রিটার্নিং অফিসারগণ প্রত্যেক ভােটকেন্দ্রের জন্য প্রয়ােজনীয় সংখ্যক ভােটার তালিকার কপি প্রিজাইডিং অফিসারকে সরবরাহ করিবেন। [১০(২) অনুচ্ছেদ] (ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ)

এবং প্রিজাইডিং অফিসার তার ভােটকেন্দ্রের জন্য নির্ধারিত এলাকার ভােটার তালিকার কপিগুলি ভালভাবে বুঝিয়া লইবেন। যদি সরবরাহকৃত ভােটার তালিকা অসম্পূর্ণ থাকে তাহা হইলে তাহা সম্পূর্ণ করাইয়া লইবেন।

ভােটগ্রহণকারী কর্মকর্তা নিয়ােগ এবং প্রশিক্ষণ: এই তথ্যটি কোনো প্রকার ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে নয় বরং জনগণের কল্যাণে বহুল প্রচারের লক্ষ্যে অধ্যয়ন ডট কম এর পাঠকদের সুবিদার্থে প্রকাশ করা হয়েছে। এটি সরাসরি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন এর সূত্র থেকে সংগৃহিত। এতে কারও কোনো আপত্তি থাকলে রিমুভ করার অনুরোধ করতে পারেন: [email protected] অথবা সরাসরি আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। 

অধ্যয়ন ডট কম এর সকল আপডেট সবার আগে পাওয়ার জন্য আমাদের ফেসবুক পেইজটি লাইক ও ফলো রাখুন এবং ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করে রাখুন। প্রতিদিন শিক্ষা সংক্রান্ত সকল তথ্য পেতে আমাদের দৈনিক শিক্ষা ক্যাটাগরি দেখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: এই কনটেন্ট কপি করা যাবেনা! অন্য কোনো উপায়ে কপি করা থেকে বিরত থাকুন!!!