আমাদের জীবনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি


বিজ্ঞান বিষয়টা তোমাদের কাছে নিশ্চয়ই নতুন নয়! বিজ্ঞান কী বা বিজ্ঞান কী নিয়ে কাজ করে এই নিয়েই আমাদের এবারের কাজ! একইসাথে দৈনন্দিন জীবনে নানা কাজে আমরা যেসব প্রযুক্তির সাহায্য নিই, এই কাজ শেষে সেগুলোকেও হয়ত নতুন চোখে দেখতে শিখব!

আমাদের জীবনে বিজ্ঞান

প্রথম ও দ্বিতীয় সেশন

আমাদের জীবনে বিজ্ঞান আগের শিখন অভিজ্ঞতায় তোমরা নিশ্চয়ই বিজ্ঞান কীভাবে কাজ করে তার কিছুটা ধারণা পেয়েছো। বিজ্ঞান যা বলে তার পক্ষে যে যথেষ্ট তথ্য প্রমাণ থাকতে হয়, এবং তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে কোনো তত্ত্ব পরিবর্তিতও হতে পারে তাও তোমরা জেনেছো।

এই নতুন শিখন অভিজ্ঞতায় আমরা বিজ্ঞান, বিজ্ঞানী, বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানের প্রক্রিয়া, প্রযুক্তি এসকল বিষয়গুলোকে আরো খুঁটিয়ে দেখার চেষ্টা করব।

আমাদের জীবনে বিজ্ঞান

স্কুলের বইয়ে বিজ্ঞান তো আমরা সবাই পড়ি, কিন্তু তোমাদের কখনো জানতে ইচ্ছা হয়েছে যে সত্যিকারের বিজ্ঞানীরা কীভাবে কাজ করেন? আচ্ছা তোমরা কি কখনো সত্যিকারের কোনো বিজ্ঞানীকে নিজের চোখে দেখেছো? বিজ্ঞানীরা দেখতে কেমন হয়?

চল এঁকে ফেলি আমাদের যার যার কল্পনার বিজ্ঞানীকে!










ছবি: আমার চোখে বিজ্ঞানী

দেখো তো তোমার পাশের বেঞ্চের বন্ধু কেমন এঁকেছে? ক্লাসের বাকিরাই বা কেমন আঁকল? সবার আঁকা ছবিতে বিজ্ঞানীদের চেহারা বা পোশাক আশাকে কোন কোন বৈশিষ্ট্য সবচেয়ে বেশি দেখা যাচ্ছে? আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

এবার অনুসন্ধানী পাঠ বই থেকে প্রথম অধ্যায়ের প্রথম অংশে বিজ্ঞানের ধারণা, মাদাম কুরির উদাহরণ, আইজাক নিউটন ও হরিপদ কাপালী সম্পর্কে যা লেখা আছে তা পড়ে নাও।

তোমার নিজের কল্পনায় বিজ্ঞানীর যেই ছবি আছে তার সাথে এদের কোনো মিল পাচ্ছ? পাশের জনের সাথে আলোচনা করে দেখো তো! আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

এবার আলোচনার ভিত্তিতে চট করে নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লিখে ফেলো!

সত্যিকারেরবিজ্ঞানীদের মধ্যে
কোন কোন
বৈশিষ্ট্য দেখা যায়?
চাইলেই কি যে
কেউ বিজ্ঞানী হতে
পারে?
বৈজ্ঞানিকগবেষণা করতে
কি সবসময়ই
অনেক আধুনিক
ল্যাবরেটরি বা
যন্ত্রপাতি প্রয়োজন
হয়?

আমাদের জীবনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এবার আবার আলোচনায় ফিরে যাও। কোনো প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে বা কোনো সমস্যা সমাধান করতে বিজ্ঞানীরা অনুসন্ধান বা গবেষণা করে থাকেন। এখন এই অনুসন্ধান করতে কি পেশাদার বিজ্ঞানীই হতে হবে? নাকি তোমরাও একইভাবে কোনো সমস্যা সমাধান করতে বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধান করতে পারো? আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

দুইজন বিজ্ঞানীর আবিষ্কারের গল্প তো পড়লে, এদের গবেষণার প্রক্রিয়া আরেকবার খুঁটিয়ে দেখো তো! দুজনের কাজের পদ্ধতিতে কোনো মিল কি দেখতে পাচ্ছ? পাশের বন্ধুর সাথে আলাপ করে তোমার চিন্তা নিচে টুকে রাখো-

স্যার আইজাকনিউটন ও
হরিপদ কাপালীর
বৈজ্ঞানিক
গবেষণার
প্রক্রিয়ার মধ্যে মিল কী কী?

* এবার তোমাদের অনুসন্ধানী পাঠ বই থেকে বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানের অংশটুকু পড়ে নাও। বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধানের ধাপগুলো বন্ধুদেরসহ শিক্ষকের সাথে আলোচনা করো। এবার আবার হরিপদ কাপালীর

বৈজ্ঞানিকঅনুসন্ধানের
ধাপসমূহ
বিজ্ঞানী হরিপদ কাপালী এই ধাপে যা করেছেন-
(১) একটি সমস্যা বা প্রশ্ন ঠিক করা যারসমাধান বা উত্তর
বের করতে হবে
(২) এ সম্পর্কে যাকিছু গবেষণা হয়েছে
তা জেনে নেয়া
(৩) প্রশ্নটির একটি সম্ভাব্য ব্যাখ্যা দাঁড়কারানো
(৪) সম্ভাব্য ব্যাখ্যাটি সত্যি কিনা সেটিপরীক্ষা করে দেখা
(৫) পরীক্ষারফলাফল বিশ্লেষণ
করে একটি সিদ্ধান্ত
নেয়া
৬) সবাইকে ধারণাটিজানিয়ে দেয়া

তৃতীয় সেশন

আগের দিন তো বিজ্ঞান কীভাবে কাজ করে তা নিয়ে অনেক আলোচনা হলো, বিজ্ঞান আমাদের অনেক প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পেতে সাহায্য করে তাও দেখলাম আমরা। কিন্তু বিজ্ঞান আমাদের জীবনে সরাসরি কীভাবে কাজে লাগে তা কি কখনো ভেবে দেখেছো? আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

> বিজ্ঞানের জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে আমাদের প্রতিদিনের জীবনকে কীভাবে আমরা সহজ করি তার কয়েকটি উদাহরণ কি ভাবতে পারো?

> নিচের ছকে ঝটপট লিখে ফেলো তো কী কী মাথায় আসে!

বিজ্ঞানের জ্ঞান কাজে লাগিয়ে জীবনের কোন কোন ক্ষেত্রে আমরা সরাসরি আমাদের প্রয়োজন মেটাই?

………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………

______________________________________________________________________________________________

বিজ্ঞানের জ্ঞানটুকু যখন আমাদের জীবনের কোনো একটি প্রয়োজন মেটাতে ব্যবহার করা হয় তখন সেটাকে বলে প্রযুক্তি। উপরের ছকে নিশ্চয়ই তুমি বেশ কিছু প্রযুক্তির কথা তুলে ধরেছো! তারপরও কি খুব সাধারণ/প্রচলিত কোনো কিছু তোমার চোখ এড়িয়ে গেছে? এটা বোঝার জন্য এখন পাশের একজন বন্ধুর সাথে উপরের তালিকাটি মিলিয়ে দেখো। আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

দুজনের তালিকার মধ্যে কি মিল আছে? যদি থেকে থাকে তাহলে সেগুলো কী কী? দুজনের তালিকাতেই আছে বা দুজনেই যে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত জানতে খুব আগ্রহী এমন একটা প্রযুক্তি দুজনে মিলে নির্বাচন করো। আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

এবার তোমাদের দুজনের দায়িত্ব হলো যে প্রযুক্তিটি নির্বাচন করেছো তার পিছনে বিজ্ঞানের ভূমিকা কী অর্থাৎ বিজ্ঞানের কোন বিশেষ জ্ঞান এক্ষেত্রে জড়িত, এক্ষেত্রে বিজ্ঞানের প্রয়োগ কীভাবে হয়েছে তা খুঁজে বের করা। নিজেরা আলোচনা করে আলোচনার ফলাফল নিচে টুকে রাখো-

আমাদের পছন্দেরপ্রযুক্তি
বিজ্ঞানের কোনক্ষেত্রের জ্ঞান এখানে
কাজে লাগানো হয়েছে

ক্লাসের বাকিরাও তো নিশ্চয়ই তাদের পছন্দের প্রযুক্তি নিয়ে লিখেছে! সবার সাথে আলোচনা করে দেখো তো নতুন কোনো প্রযুক্তির কথা জানতে পারো কিনা! আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

বাড়ির কাজ

পরের দিনের সেশনের আগে তোমাদের একটা কাজ করতে হবে। তোমাদের বাসাবাড়িতে পরিবারের সদস্যরা, আত্মীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব কী কী প্রযুক্তি ব্যবহার করে তার তালিকা নিচের ছকে লিখে রাখবে। পাশাপাশি এই প্রযুক্তি তারা কী কাজে লাগায় তাও নোট করে রাখতে ভুলো না যেন!

 প্রযুক্তির নামকী কাজে ব্যবহৃত হয়?
……………………………………
……………………………………
……………………………………
……………………………………
……………………………………
……………………………………
……………………………………
……………………………………
……………………………………
……………………………………………………………………………..
……………………………………………………………………………..
……………………………………………………………………………..
……………………………………………………………………………..
……………………………………………………………………………..
……………………………………………………………………………..
……………………………………………………………………………..
……………………………………………………………………………..
……………………………………………………………………………..

চতুর্থ সেশন

* আগের দিন তোমার মতো তোমার বন্ধুরাও নিশ্চয়ই অনেক প্রযুক্তির ধরনের কথা লিখে নিয়ে এসেছে। প্রথমেই ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে বাকি সবার কথা শুনে নাও, তুমি কী কী পেয়েছো

তা-ও অন্যদের সাথে শেয়ার করো!

* দৈনন্দিন জীবনের নানা ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে তো অনেক কাজ হলো। কিন্তু প্রযুক্তি কি

কেবল আমাদের প্রতিদিনের জীবনের সাথে জড়িত নাকি অন্যান্য ক্ষেত্রেও এর ব্যবহার রয়েছে? এবার চলো বিজ্ঞানের নানা বিষয় এবং দৈনন্দিন জীবন ছাড়াও অনান্য ক্ষেত্রে এর প্রয়োগ অর্থাৎ প্রযুক্তির আরও কী কী উদাহরণ আছে তা দলে কাজ করে খুঁজে বের করা যাক!

দলের আলোচনায় নতুন যা যা প্রযুক্তির কথা জানলে তা নিচের ছকে লিখে ফেলো-

প্রযুক্তির নামকী কাজে ব্যবহৃত হয়?
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
…………………………..
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….
………………………………………………………………………………………………….

* তোমাদের নিজেদের সংগ্রহ করা তথ্য এবং দলের বাকিদের থেকে যত ধরনের প্রযুক্তির কথা আলোচনায় উঠে এল সেগুলোকে একসঙ্গে করে একটা তালিকা করে নাও। এবার একটু খুঁটিয়ে দেখো তো, এই যে এত এত প্রযুক্তির কথা বলা হয়েছে তার মধ্যে কোনগুলো সত্যি সত্যি আমাদের প্রয়োজন? কোনগুলো একেবারেই অপ্রয়োজনীয়?

আবার সবগুলো প্রযুক্তিই কি মানুষ ভালো কাজে ব্যবহার করে? অনেক প্রযুক্তি তো আমরা খারাপ কাজেও ব্যবহৃত হতে দেখি! আবার এমন অনেক প্রযুক্তি আছে যার ভালো খারাপ দুইরকম ব্যবহারই হতে পারে!

তোমাদের দলীয় তালিকায় উঠে আসা সকল প্রযুক্তি ও তাদের ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করে দেখো তো কোনটা কোন ধরনের মধ্যে পড়ে! এই ব্যাপারে তোমরা তোমাদের অনুসন্ধানী পাঠ বইয়ের সাহায্য নিতে পারো, প্রথম অধ্যায়ের প্রযুক্তির অংশটুকু পড়ে নাও। এরপর সবার মতামতের ভিত্তিতে তোমাদের তালিকার প্রযুক্তিগুলোকে শ্রেণিবদ্ধ করো পাশের পৃষ্ঠার ছক অনুযায়ী-

প্রযুক্তির নামপ্রযুক্তিটির বিভিন্ন ব্যবহারপ্রযুক্তিটি ব্যবহারের
ফলাফল ভালো নাকি খারাপ হচ্ছে
কেন আমরা ভালো বা খারাপ বলছি?



















দেখতেই পাচ্ছ, বিভিন্ন প্রযুক্তি জীবনকে যেমন অনেক সহজ করেছে, তেমনই এর অপব্যবহারের ঝুঁকিও কম নয়। একটু ভেবে দেখো তো এই ব্যাপারে আমাদের কিছু করার আছে কিনা! আজ বাড়ি ফিরে তোমার বাসার অন্যদের মতামতও নাও, পরের সেশনে দলের বাকিদের সাথেও আলোচনা করা যাবে! আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

পঞ্চম সেশন

আগের সেশনের পরে নিশ্চয়ই তোমরা যার যার বাসায় বসে প্রযুক্তির নানা ধরনের ব্যবহার, এবং সেক্ষেত্রে আমাদের কার কী করার আছে তা নিয়ে অনেক চিন্তা করেছো! এখন দলের বাকিদের সাথে আলাপ করে দেখো বাকিরা কী ভেবেছে! আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

ক প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার শুধু নিজে করলেই তো হবে না, অন্যদেরকেও সচেতন করতে হবে! সেটা কীভাবে করা যায় তা নিয়ে দলে আলোচনা করে অনেক ভালো ভালো আইডিয়া পেয়ে গেছো নিশ্চয়ই! তোমাদের দলীয় আলোচনার উপর ভিত্তি করে আইডিয়াগুলো নিচে টুকে ফেলো বরং-

ভালো উদ্দেশ্যে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে আমরা কী করতে পারি?অপ্রয়োজনীয় প্রযুক্তির ব্যবহার, কিংবা প্রযুক্তির অপব্যবহার কমাতে আমাদের কী করার আছে?
……………………………………………………
……………………………………………………
……………………………………………………
……………………………………………………
……………………………………………………
……………………………………………………
……………………………………………………
……………………………………………………
……………………………………………………
……………………………………………………
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..
………………………………………………………………………………..

এবার নিজেদের আইডিয়া ক্লাসের বাকিদের সাথে শেয়ার করে দেখো অন্যদের কী মত! অন্যদের সাথে শেয়ার করার জন্য চাইলে পোস্টার ব্যবহার করতে পারো, কিংবা ছবি এঁকে বা অন্য যেকোনো ভাবে! আমাদের জীবনে বিজ্ঞান।

তোমাদের ক্লাসের সবাই তো এখন প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে অনেক সচেতন, কিন্তু তোমাদের স্কুলের অন্যান্য শ্রেণির শিক্ষার্থীরা হয়ত অনেকেই এই বিষয়গুলো জানেনা বা কখনো খেয়ালই করেনি! এই বিষয়ে তোমরা কি কিছু করতে পারো? ক্লাসে সবাই আলোচনা করে দেখো, চাইলে কার্টুন

বা পোস্টার প্রদর্শনী, একটা সেমিনার বা আলোচনা অনুষ্ঠান- ইত্যাদির আয়োজনও করা যায়। শিক্ষকসহ সবাই মিলে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নাও!

পরিকল্পনামাফিক সব হয়ে গিয়েছে কি? এই কাজ করতে গিয়ে নতুন কোনো দিক মাথায় এসেছে যা আগে কখনো ভাবোনি? নিচে নোট করে রাখো তোমার অনুভুতি!

ফিরে দেখা

তোমাদের দলের পরিকল্পনা কী ছিল?

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………………

………………………………………………………………………………………………………………………………

………………………………………………………………………………………………………………………………

………………………………………………………………………………………………………………………………

কাজটা করতে গিয়ে তোমার অভিজ্ঞতা কেমন হলো? নতুন কী শিখলে বা জানলে?

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে এমন কোনো প্রশ্ন মাথায় আছে যার উত্তর এখনো মেলে নি? নিচে লিখে ফেলো তোমার প্রশ্ন, যাতে হারিয়ে না যায়! পরে নিশ্চয়ই কখনো না কখনো এই প্রশ্নগুলোর উত্তর তুমি নিজেই খুঁজে বের করতে পারবে!

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

………………………………………………………………………………………………………………………….

আরো পড়ুন : আকাশ কত বড় ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: এই কনটেন্ট কপি করা যাবেনা! অন্য কোনো উপায়ে কপি করা থেকে বিরত থাকুন!!!